তাকলাগানো জয় আওয়ামী লীগের

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ জয় পেয়েছে। রাত সাড়ে ১২টায় এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত আওয়ামী লীগ পেয়েছে ২১১ আসন, বিএনপি ৬, জাতীয় পার্টি ২১ ও অন্যান্য দল পেয়েছে ৯টি আসন।

নতুন দু’টি রেকর্ড গড়ে টানা তৃতীয় বারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। আর এ সংসদেও দ্বিতীয় বারের মত বিরোধী দলে আসনে বসতে যাচ্ছে জাতীয় পার্টি (জাপা)। আওয়ামী লীগের সরকার গঠন করা এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র।

রোববার দিনভর ভোট শেষে সন্ধ্যা ৬টায় আনুষ্ঠানিকভাবে ফলাফল ঘোষণা শুরু করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিবালয়। সন্ধ্যা ৬টায় ফলাফল মঞ্চে রাজনৈতিক দল, মিডিয়া কর্মী ও পর্যবেক্ষক সংস্থার সামনে ফলাফল ঘোষণা শুরু করেন নির্বাচন কমিশন (ইসি) সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ। অবশ্য এর আগে থেকেই বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে আওয়ামী লীগের বিজয় দ্বৈরথের খবর আসতে থাকে। আর সেই জয়ের আনন্দে বের হয় ছোট-বড় অনেক আনন্দ মিছিল। অন্যদিকে এমন ফলাফলে হতাশায় মুষড়ে পড়েন বিএনপি-জামায়াত তথা জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সমর্থকরা।

এদিকে ফলাফল ঘোষণার আগে নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ তুলে তা বাতিল করে নির্দলীয় সরকারের অধীনে নতুন নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেন। ভোটগ্রহণ শেষে রাতে এক সংবাদ সম্মেলনে এই দাবি জানান তিনি।

ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘দেশের প্রায় সব আসন থেকে একই রকম ভোট ডাকাতির খবর এসেছিল। এ পর্যন্ত আমাদের শতাধিক প্রার্থী নির্বাচন বর্জন করেছে।’

এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা ও আওয়ামী লীগের জাতীয় নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যান এইচটি ইমাম রাতে ইসি ভবনে জাগো নিউজকে বলেন, ‘আমরা জনগণের জন্য কাজ করেছি। তার প্রতিদান জনগণ দিয়েছেন। নিজেদের ভরাডুবির কারণে এখন ঐক্যফ্রন্ট নানা কথা বলছে। বিদেশিরা যখন বলছেন- নির্বাচন সুষ্ঠু হয়েছে, তখন তাদের কথা জনগণ বিশ্বাস করবে না।’

এবারের নির্বাচনে নতুন দু’টি রেকর্ড গড়ে টানা তৃতীয় বারের মতো সরকার গঠন করতে যাচ্ছে আওয়ামী লীগ। এর আগে, ১৯৭৩ সালে প্রথম জাতীয় জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করে। এরপর শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৯৯৬ সালের ৭ম জাতীয় সংসদ নির্বাচন, ২০০৮ সালে ৯ম জাতীয় সংসদ নির্বাচন ও ২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করে। এই হিসেবে ২০০৮ সালের পর থেকে টানা তৃতীয় বার এবং ১৯৭৩ থেকে মোট পাঁচবার আওয়ামী লীগ সরকার গঠন করে দু’টি রেকর্ড সৃষ্টি করে।

এরই মধ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসাইন মুহম্মদ এরশাদ, আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নির্বাচিত হয়েছেন।

দেশের ৩০০ সংসদীয় আসনের মধ্যে গাইবান্ধা-৩ আসনে এক প্রার্থী মারা যাওয়ায় রোববার ২৯৯ আসনে ভোট গ্রহণ করা হয়। গাইবান্ধা-৩ আসনে ২৭ জানুয়ারি ভোটগ্রহণ করা হবে। এবারের নির্বাচনে মোট প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ছিলেন ১ হাজার ৮৬১ জন। এরমধ্যে রাজনৈতিক দলের প্রার্থী ছিলেন ১ হাজার ৭৩৩ জন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী ১২৮ জন।

Comments

comments

শেয়ার করুন

PinIt