রাজনীতিতে এখন ভণ্ডের সংখ্যা অনেক বেশি : শামীম ওসমান

নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমান বলেছেন, রাজনীতিতে এখন সত্যের থেকে অসত্যের সংখ্যা অনেক বেশি, ভণ্ডের সংখ্যা অনেক বেশি। তাই জেনে বুঝে পদক্ষেপ নিতে হবে। 

বৃহস্পতিবার (০৩ মার্চ) দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সরকারি তোলারাম কলেজের নবীন বরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

শামীম ওসমান বলেন, আমার মনে হয়, ব্রিটিশদের গোলামি থেকে মুক্ত হয়েছি কিন্তু গোলামির চরিত্র থেকে মুক্ত হতে পারি নাই। ‘নটাঙ্কি’ দেখতে দেখতে আর ভালো লাগে না। রাজনীতি ব্যবসা হয়ে গেছে। শতকোটি টাকার বাড়ি বানাই ইনকাম ট্যাক্সের ফাইলে দশ টাকাও নাই। এনবিআর কি করে জানি না, দুদক নামে কোনো বস্তু আছে তাও চিনি না। ভালো ভালো সব লোক বসা সেখানে। দেশের সবচেয়ে দামি দামি লোক বসা সেখানে। তদন্ত তো দেখি না। মুখ খুলতে চাই না, সময় হলে মুখ খুলব। 

তিনি বলেন, আজ থেকে ৩০ বছর আগে তোলারাম কলেজ সরকারি করার দাবিতে জিয়াউর রহমানকে আটকে পিঠ ক্ষতবিক্ষত করেছি, আমার স্বার্থ কী? আমরা যখন গোলাম আজমকে অবাঞ্ছিত করেছিলাম, আমাদের ২০ ছেলেকে বোমা মেরে উড়িয়ে দিয়েছিল। এ কলেজে ৮১ সনে প্রতিবাদ করেছিলাম রাজাকার রাষ্ট্রপ্রধানকে ঢুকতে দেওয়া হবে না। আমরা ঢুকতে দেইনি। প্রশাসন আমাদের ওপর গুলি করল। আমাকে একাধারে গুলি করা হল। আল্লাহর রহমতে গুলি লাগেনি।  কিন্তু ওই ক্লাসে আমার ভাই আবু আউয়ালকে পরীক্ষারত অবস্থায় মারা হয়েছে। আমার ৮৫ জন ছেলেকে গুলি করা হয়েছিল। আমাদের কী স্বার্থ ছিল? আমাদের স্বার্থ একটাই, আপনাদের সুন্দর ভবিষ্যৎ। 

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে শামীম ওসমান বলেন, আপনাদের সামনের পথটা সহজ পথ না। বাংলাদেশ নিয়ে গভীর ষড়যন্ত্র হচ্ছে। আমার দেশকে হেয় করা হয় আর দেশেরই একটি রাজনৈতিক মহল হাতে তালি দেয়। আমার সন্তানদের যদি আমি মিথ্যা বলি আমি যেমন ছোট হয়ে যাবো একজন বাবা হিসেবে, তেমনি আপনাদের মিথ্যা কথা বললে আমি নিজেকে মাফ করতে পারব না। আমি দেখি সামনে আপনাদের ভবিষ্যৎ এত সুন্দর না। সামনের ভবিষ্যত অনেক লড়াইয়ের। এর ভেতর শুরু হয়েছে আন্তর্জাতিক যুদ্ধ। হাঁটি হাঁটি করে এ দেশ জাতির জনকের কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দাঁড়াচ্ছিল। আমরা মাথা তুলে দাঁড়ালাম, জিডিপি আট হয়ে গেল। করোনায় ধাক্কা খেলাম, এখন আবার যুদ্ধ। মানুষ বাঁচানোর চেয়ে মানুষ মারার জন্য বেশি অর্থ খরচ হয়।

তিনি বলেন, আমি সাহস দেখে অবাক হই, এরশাদ সাহেবের বউ রওশন এরশাদ তোলারাম কলেজের জায়গা দখল করতে আসলেন, সেনাবাহিনী পুলিশ আসলো। এক ইঞ্চি জায়গা দখল করতে পারেনি। আজকে আমরা দেখি সিটি করপোরেশন এসে তোলারাম কলেজের জায়গা দখল করে পানির মোটর লাগাতে চায়। কী করবো বলেন- পানির মোটর লাগাতে দিব, না বিল্ডিং করব? 

শামীম ওসমান বলেন, বাংলাদেশের পটপরিবর্তন করেছে ছাত্রসমাজ। আপনারা কেমন যেন মিনমিনে হয়ে যাচ্ছেন। আপনি ফেসবুকে চ্যাটিং করেন সমস্যা নেই। তবে ডু সামথিং ফর ইওর কান্ট্রি। শামীম ওসমান অন্যায় করলে শামীম ওসমানের বিরুদ্ধে দাঁড়ানো আপনাদের নৈতিক দায়িত্ব। আমি কোনো রাজনৈতিক দলের কথা বলব না, সকল ছাত্রদের এক প্ল্যাটফর্মে আসতে বলব।

কলেজের অধ্যক্ষ বেলা রানী সিংহের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান সালমা ওসমান লিপি, কলেজ ছাত্র সংসদের ভিপি হাবিবুর রহমান রিয়াদ প্রমুখ।

Share this post

PinIt

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top